Category Archives: Uncategorized

ফজরের সালাতের জন্য জেগে উঠার কিছু কার্যকরী কৌশল: আমরা যারা নিয়মিত সালাত আদায় করার চেষ্টা করি, আমাদের সবগুলো সালাত ঠিক থাকলেও ‘ফজরের সালাত’ নিয়ে কিছুটা সমস্যায় পড়তে হয়। অনেকেই অনেক চেষ্টা করেও পারি না ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠতে। কীভাবে করা যায় এ সমস্যার সমাধান? আমি শুধু দু’ একদিনের কথা বলছি না, বলছি প্রতিদিনকার কথা। আসুন […]

via ফজরের সালাতের জন্য ঘুম থেকে জেগে ওঠার কিছু কার্যকরী কৌশল : — এসো আল্লাহর পথে

জান্নাতে যাওয়ার সহজ ১৩ টি আমল

জান্নাতে যাওয়ার সহজ মাধ্যমগুলো জেনে নিনঃ ★★★ প্রত্যেক ওযুর পর কালেমা শাহাদত পাঠ করুণ(আশ্হাদু আল্লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহ্দাহু লা- শারীকা লাহূ ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান ‘আব্দুহূ ওয়া রাসূলুহূ) এতে জান্নাতের ৮টি দরজার যে কোন দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। ☞ (সহিহ মুসলিম, হাদিস নং- ২৩৪) ★★★ প্রত্যেক ফরজ সলাত শেষে আয়াতুল কুরসি পাঠ করুণ এতে মৃত্যুর […]

via জান্নাতে যাওয়ার সহজ ১৩ টি আমল!! — এসো আল্লাহর পথে

মাযহাব মানা ফরজ??

 

আনেকে দাবি করেন,যে চার মাজহাবের কোনো একজনকে না মানলে কাফের,আবার কেউ কেউ দাবি করেন যে মাযহাব মানা ফরজ।

*আসুন সমাধান সরাসরি আল্লাহর কাছ থেকে জেনে নেই।

وَأَنَّ هَـٰذَا صِرَاطِي مُسْتَقِيمًا فَاتَّبِعُوهُ ۖ وَلَا تَتَّبِعُوا السُّبُلَ فَتَفَرَّقَ بِكُمْ عَن سَبِيلِهِ ۚ ذَٰلِكُمْ وَصَّاكُم بِهِ لَعَلَّكُمْ تَتَّقُونَ

(আল আনআম – ১৫৩)
”আর যে এটিই আমার সহজ-সঠিক পথ, কাজেই এরই অনুসরণ করো, এবং অন্যান্য পথ অনুসরণ করো না, কেননা সে-সব তাঁর পথ থেকে তোমাদের বিচ্ছিন্ন করবে।’’ এইসব দ্বারা তিনি তোমাদের নির্দেশ দিয়েছেন যেন তোমরা ধর্মপরায়ণতা অবলন্বন িকরো।

اتَّبِعُوا مَا أُنزِلَ إِلَيْكُم مِّن رَّبِّكُمْ وَلَا تَتَّبِعُوا مِن دُونِهِ أَوْلِيَاءَ ۗ قَلِيلًا مَّا تَذَكَّرُونَ

(আল আরাফ – ৩)
”তোমাদের প্রভুর কাছ থেকে তোমাদের কাছে যা অবতীর্ণ হয়েছে তা অনুসরণ করো আর তাঁকে বাদ দিয়ে অভিভাবকদের অনুসরণ করো না। অল্পই যা তোমরা মনে রাখো।’’

=>আসুন এ সম্পর্কে আমরা আল্লাহর রাসুল (সাঃ) এর নিকট থেকে কিছু জেনে নেই।


রাসূলুল্লাহ (সা:) থেকে ‘সিরাতে মুস্তাকিম’
সর্ম্পকে হাদীস বর্ণিত হয়েছে:

“আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা:) বলেন
রাসূলুল্লাহ (সা:) আমাদেরকে (সিরাতে
মুস্তাকিম বুঝানোর জন্য) প্রথমে একটি
সোজা দাগ দিলেন। আর বললেন এটা
হলো আল্লাহর রাস্তা । অতপর ডানে বামে
অনেকগুলো দাগ দিলেন আর বললেন এই
রাস্তাগুলো শয়তানের রাস্তা । এ রাস্তাগুলোর
প্রতিটি রাস্তার মুখে মুখে একেকটা শয়তান
বসে আছে যারা এ রাস্তার দিকে
মানুষদেরকে আহবান করে। অতপর
রাসূলুল্লাহ (সা:) নিজের কথার প্রমাণে উপরে
উল্লেখিত প্রথম আয়াতটি তেলাওয়াত
করলেন।” (মুসনাদে আহমদ ৪১৪২; নাসায়ী
১১১৭৫; মেশকাত ১৬৬।)

**এখন প্রশ্ন থেকেই যায়,যে আমরা যারা জানিনা তারা কি করবো??

=>আসুন আমরা এর উত্তরও আল্লাহর থেকে জেনে নেই।

وَمَا أَرْسَلْنَا مِن قَبْلِكَ إِلَّا رِجَالًا نُّوحِي إِلَيْهِمْ ۚ فَاسْأَلُوا أَهْلَ الذِّكْرِ إِن كُنتُمْ لَا تَعْلَمُونَ

[ আন নাহল – ৪৩ ]
আপনার পূর্বেও আমি প্রত্যাদেশসহ মানবকেই তাদের প্রতি প্রেরণ করেছিলাম অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস কর, যদি তোমাদের জানা না থাকে।

***এখন নতুন প্রশ্ন তৈরি হল, আর তা হল,অনেক সময় দেখাযায় যে জ্ঞানিদের মধ্যেই মত বিরোধ।
যেন চার ঈমাম এর মধ্যেই অনেক বিষয়ে মতবিরোধ আছে।এখন আমরা কি করবো??

=>আসুন এই প্রশ্নের উত্তরটাও আল্লার কাছ থেকে জেনে নেই।

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا أَطِيعُوا اللَّهَ وَأَطِيعُوا الرَّسُولَ وَأُولِي الْأَمْرِ مِنكُمْ ۖ فَإِن تَنَازَعْتُمْ فِي شَيْءٍ فَرُدُّوهُ إِلَى اللَّهِ وَالرَّسُولِ إِن كُنتُمْ تُؤْمِنُونَ بِاللَّهِ وَالْيَوْمِ الْآخِرِ ۚ ذَٰلِكَ خَيْرٌ وَأَحْسَنُ تَأْوِيلًا

(আন নিসা – ৫৯)
ওহে যারা ঈমান এনেছ! আল্লাহ্‌কে অনুসরণ করো, ও রসূলের অনুগমন করো, আর তোমাদের মধ্যে যাদের হুকুম দেবার ভার আছে। তারপর যদি কোনো বিষয়ে তোমরা মতভেদ করো তবে ফিরে এসো আল্লাহ্ ও রসূলের কাছে, যদি তোমরা আল্লাহ্‌তে ও আখেরাতের দিনে বিশ্বাস করে থাকো। এটিই হচ্ছে শ্রেষ্ঠ ও সর্বাঙ্গ সুন্দর সমাপ্তিকরণ।

****শেষ প্রশ্ন,যে সকল বিষয়ে মত বিরোধ আছে তা নিজে যাচাই করতে গিয়ে যদি কোনো ভুল করে ফেলি??

=>আসুন এর উত্তর মোহাম্মদ (সাঃ) এর নিকট থেকে জেনে নেই।

আমর ইবনুল আস (রাঃ) বর্ণনা করেছেন

তিনি রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কে বলতে শুনেছেনঃ বিচারক যখন ইজতিহাদ করে (চিন্তাভাবনা করে সঠিক সিদ্ধান্তে পৌঁছার চেষ্টা করে) বিচার করে, অতঃপর সঠিক সিদ্ধান্তে পৌঁছে যায়, তাঁর জন্য রয়েছে দু’টি পুরস্কার। আর সে যখন ইজতিহাদ করে বিচার করতে গিয়ে ভুল করে বসে তবুও তাঁর জন্য রয়েছে একটি পুরস্কার। [২৩১৪]

সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নং ২৩১৪
হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

Al mehdi al hasanbd

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=203639700083465&id=100013123092003

Rafee-yadin seven hadiths fm bukhari& muslim

স্বালাতত ৰফউল ইয়াদাইন তথা দুইহাত কান/কান্ধ পর্যন্ত উঠোৱা মানসূখ( Cancelled verse)নহয়।
————————————————————–
~~ আৰু কিমানদিন সত্য গোপন থাকিব ?
কোৱাঃ সত্য আহিছে আৰু মিথ্যাৰ বিলুপ্ত
হৈছে। নিশ্চয় মিথ্যা বিলুপ্ত হোৱাটোৱেই আছিল।
( সুৰা ইসৰাঃ ৮১)
————————————————————-

7 nos. Hadiths from Sahih Bukhari & Sahih Muslim, no.735-739.

http://sunnah.com/bukhari/10/129-133
http://sunnah.com/muslim/4/27-28

সতিদাহ

ΨΨ সতিদাহ: সনাতন রীতি অনুযায়ী মৃত স্বামীর সাথে জীবন্ত পুড়ে মরার নামই সতিদাহ। বলা হয়েছে নারীরা সতিদাহ করবে কারন তার স্বামীর সাথে সে ৩ কোটি ৫০ লক্ষ দেহ পাবে ও অরুনধাতী স্বর্গে বাস করতে পারবে। আরো বলা হয়েছে যে নারী সতিদাহ করলো সে তার চাচাতো মামাতো সকল বংশীয়কে পবিত্র করলো।
‘‘অশ্রুবিহিন, নিঃসঙ্কোচ অবস্থায় নারীগনকে তার স্বামীর চিতায় অগ্রসর হতে দাও’’। রিগবেদ-১০, খন্ড-১৮, শ্লোকা-৭
‘‘এটা সবের্বাচ্চ নারী দায়িত্ব স্বামীর সাথে চিতায় জ্বলা’’ ব্রাহ্মা পুরানা-৮০, খন্ড -৭৫-শ্লোকা-১০৩
.
সতিদাহ প্রথা ব্রিটিশ সরকার ১৮২৯ সালে বন্ধ করে দেয়। যদিও কিছু গোঁড়া হিন্দু এর প্রতিবাদ করেছিল। এভাবে হাজার বছর ধরে সতিদাহ হিন্দুধর্মে র্চচা হয়ে আসছিল যা বাইরের শক্তির হস্তক্ষেপে বন্ধ হয়েছে যতক্ষন না এই র্চচাকে শাস্তিযোগ্য অপরাধে পরিনত করা হয়েছে।

নাজাত প্রাপ্ত দলের আকীদাহ

প্রশ্ন এবং তাঁর উত্তরসমুহ

সূচীপত্র

ছালাত জান্নাতের চাবি

link-JAL-HADITH- http://www.hadithbd.com/shareqa.php?qa=1834

Jubair Rahman বইঃ জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর ছালাত, অধ্যায়ঃ ছালাতের ফযীলত, অনুচ্ছেদঃ ছালাত জান্নাতের চাবি

ছালাত জান্নাতের চাবি

পবিত্র কুরআন ও ছহীহ হাদীছের মধ্যে ছালাতের ফযীলত সংক্রান্ত অনেক বর্ণনা রয়েছে। যার মাধ্যমে আল্লাহর বান্দা ছালাতের প্রতি মনোযোগী হতে পারে এবং বিশুদ্ধতা ও একাগ্রতার সাথে একনিষ্ঠচিত্তে ছালাত সম্পাদন করতে পারে। এক কথায় ছালাতের প্রতি আকৃষ্ট করার জন্য পবিত্র কুরআন ও ছহীহ সুন্নাহর অমীয় বাণীই যথেষ্ট। কিন্তু বর্তমানে সেই অভ্রান্ত বাণী ছেড়ে যঈফ ও জাল হাদীছ, মিথ্যা, উদ্ভট ও কাল্পনিক কাহিনী শুনিয়ে উৎসাহিত করা হচ্ছে। বই-পুস্তক লিখে ও বক্তব্যের মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। এগুলো মানুষের হৃদয়ে কোন প্রভাব ফেলে না। আমরা এই অধ্যায়ে সেগুলো উল্লেখ করার পাশাপাশি ছহীহ দলীলগুলোও উল্লেখ করার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

ছালাত জান্নাতের চাবি :

কথাটি সমাজে বহুল প্রচলিত। অনেকে বুখারীতে আছে বলেও চালিয়ে দেয়। অথচ এর সনদ ত্রুটিপূর্ণ।

(১) عَنْ جَابِرِ بْنِ عَبْدِ اللهِ قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ  مِفْتَاحُ الْجَنَّةِ الصَّلاَةُ وَمِفْتَاحُ الصَّلاَةِ الطُّهُوْرُ.

(১) জাবের ইবনু আব্দুল্লাহ (রাঃ) বলেন, রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেছেন, জান্নাতের চাবি হল ছালাত। আর ছালাতের চাবি হল পবিত্রতা।[1]

তাহক্বীক্ব : হাদীছটির প্রথম অংশ যঈফ।[2] আর দ্বিতীয় অংশ পৃথক সনদে ছহীহ সূত্রে বর্ণিত হয়েছে।[3]

প্রথম অংশ যঈফ হওয়ার কারণ হল- উক্ত সনদে দু’জন দুর্বল রাবী আছে। (ক) সুলায়মান বিন করম ও (খ) আবু ইয়াহইয়া আল-ক্বাত্তাত।[4]

জ্ঞাতব্য : জান্নাতের চাবি সম্পর্কে ইমাম বুখারী (রহঃ) একটি অনুচ্ছেদের বিষয়বস্ত্ত আলোচনা করতে গিয়ে ওহাব ইবনু মুনাবিবহ (রহঃ) থেকে যে বর্ণনা উদ্ধৃত করেছেন। তাঁকে একদিন জিজ্ঞেস করা হল-

أَلَيْسَ لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللهُ مِفْتَاحُ الْجَنَّةِ قَالَ بَلَى وَلَكِنْ لَيْسَ مِفْتَاحٌ إِلاَّ لَهُ أَسْنَانٌ فَإِنْ جِئْتَ بِمِفْتَاحٍ لَهُ أَسْنَانٌ فُتِحَ لَكَ وَإِلاَّ لَمْ يُفْتَحْ لَكَ.

‘লা ইলা-হা ইল্লাল্লাহ’ কি জান্নাতের চাবি নয়? তখন তিনি বললেন, হ্যাঁ। তবে প্রত্যেক চাবির দাঁত রয়েছে। তুমি যদি এমন চাবি নিয়ে আস যার দাঁত রয়েছে, তাহলে তোমার জন্য জান্নাত খোলা হবে। অন্যথা খোলা হবে না’।[5] এছাড়াও আরো অন্যান্য হাদীছ দ্বারাও এটা প্রমাণিত হয়।[6] বুঝা যাচ্ছে যে ‘লা ইলা-হা ইল্লাল্লা-হু’ জান্নাতের চাবি আর শরী‘আতের অন্যান্য আমল-আহকাম অর্থাৎ ছালাত, ছিয়াম, হজ্জ, যাকাত ইত্যাদি ঐ চাবির দাঁত।

[1]. মুসনাদে আহমাদ হা/১৪৭০৩; তিরমিযী হা/৪; মিশকাত হা/২৯৪, পৃঃ ৩৯; বঙ্গানুবাদ মিশকাত হা/২৭৪, ২/৪৩; ফাযায়েলে আমল, পৃঃ ৮৮। [2]. যঈফুল জামে‘ হা/৫২৬৫; সিলসিলা যঈফাহ হা/৩৬০৯; যঈফ আত-তারগীব ওয়াত তারহীব হা/২১২। [3]. আবুদাঊদ হা/৬১, ১/৯ পৃঃ; তিরমিযী হা/৩; মিশকাত হা/৩১২, পৃঃ ৪০; বঙ্গানুবাদ মিশকাত হা/২৯১, ১/৫১। [4]. سنده ضعيف فيه سليمن بن قرم عن أبى يحيى القتات وهما ضعيفان لسوء حفظهما -আলবানী, মিশকাত হা/২৯৪-এর টীকা দ্রঃ ১/৯৭ পৃঃ; শু‘আইব আরনাঊত্ব, তাহক্বীক্ব মুসনাদে আহমাদ হা/১৪৭০৩-এর আলোচনা দ্রঃ। [5]. ছহীহ বুখারী ১/১৬৫ পৃঃ; হা/১২৩৭-এর পূর্বের আলোচনা দ্রঃ, (ইফাবা হা/১১৬৫-এর পূর্বের আলোচনা, ২/৩৫৫ পৃঃ), ‘জানাযা’ অধ্যায়, অনুচ্ছেদ-১। [6]. ছহীহ বুখারী হা/৫৮২৭, ২/৮৬৭ পৃঃ, ‘পোষাক’ অধ্যায়, অনুচ্ছেদ-২৩; ছহীহ মুসলিম হা/২৮৩, ১/৬৬ পৃঃ, ‘ঈমান’ অধ্যায়, অনুচ্ছেদ-৪২; মিশকাত হা/২৬; বঙ্গানুবাদ মিশকাত হা/২৪, ১ম খন্ড, পৃঃ ২৯; ছহীহ মুসলিম হা/১৫৬, ১/৪৫ পৃঃ, ‘ঈমান’ অধ্যায়, অনুচ্ছেদ-১২; মিশকাত হা/৩৯; বঙ্গানুবাদ মিশকাত হা/৩৫। http://www.hadithbd.com/shareqa.php?qa=1834