কবরে মৃত ব্যক্তির প্রশ্নোত্তর হয়। কিন্তু যারা পানিতে ডুবে মরে, আগুনে পুড়ে মরে কিংবা বাঘে খেয়ে নেয় তাদের হিসাব কোথায় হবে? : শহীদ হবার জন্য ইমান থাকা জরুরি

Faisal Ahmed Opu 
to ইসলামি প্রশ্নোত্তর জেনে নিন
#প্রশ্নঃ-আমরা জানি কবরে মৃত ব্যক্তির প্রশ্নোত্তর হয়। কিন্তু যারা পানিতে ডুবে মরে, আগুনে পুড়ে মরে কিংবা বাঘে খেয়ে নেয় তাদের হিসাব কোথায় হবে?

.
#উত্তরঃ মৃত্যুর পরে তার রূহ যেখানে থাকবে সেখানেই প্রশ্নোত্তর হবে। সেখানেই সে আযাব অথবা শান্তি পাবে। সেটি মাটির কবরে হ’তে পারে কিংবা অন্যত্র, যা সম্পূর্ণরূপে আল্লাহ্র এখতিয়ারে। এটি ঈমান বিল গায়েবের অন্তর্ভুক্ত। যে জগতের খবরাখবর ইহজগতে কোনভাবে অনুভূত হওয়ার নয়। কাজেই কুরআন-হাদীছে বারযাখী জীবন সম্পর্কে আমাদেরকে যা অবহিত করা হয়েছে তা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করে নেয়াই হবে ঈমান বিল গায়েবের দাবী। এটা সুনিশ্চিত যে, প্রত্যেক মানুষকেই কবরে প্রশ্নোত্তরের সম্মুখীন হ’তে হবে(বুখারী, মিশকাত হা/১২৬)। তবে কীভাবে সেটা হবে তা আল্লাহই সম্যক অবগত। এ ব্যাপারে আল্লাহ্র বাণী, ‘যারা ঈমান এনেছে আল্লাহ তা‘আলা তাদেরকে অটল বাক্য দ্বারা সুদৃঢ় রাখবেন ইহজীবনে এবং পরজীবনে’(ইবরাহীম ২৭)। এ আয়াতটি কবরের আযাব সম্পর্কে নাযিল হয়েছে।


comments-

Nuzhat Sharmin Kintu onekei bole jara panite dube,Agune pure,Accident kore mara jai tader shohidi mrittu bole.Eta ki thik??
Faisal Ahmed Opu বইঃ সূনান নাসাঈ, অধ্যায়ঃ ২১/ জানাজা, হাদিস নম্বরঃ ১৮৪৯
:
উতবা ইবনু আব্দুল্লাহ (রহঃ) জাবির ইবনু আতীক (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, নাবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আব্দুল্লাহ ইবনু সাবিত (রাঃ)-এর শুশ্র্যযার জন্য গিয়ে দেখতে পেলেন যে, তার মৃত্যূ আসন্ন, রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) তাকে উচ্চ সূরে ডেকেও তার কোন নাড়া শব্দ না পেয়ে “ইন্নালিল্লাহি ও ইন্না ইলাইহি রাজিয়ুন” পড়লেন এবং বললেন, হে আবূ বুবী! আমাদের সম্মূখে তোমার উপর আল্লাহ তা’আলার হুকুম বিজয়ী হতে যাচ্ছে (তুমি মৃত্যূ বরণ করেছ)। একথা শুনে কিছু মহিলা উচ্চ স্বরে ক্রন্দন শুরু করে দিলে ইবনু আতীক (রাঃ) (জাবির) তাদের শান্ত করাতে লাগলেন। তখন রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বললেন, তাদের ছেড়ে দাও। যখন মৃত্যৃ হয়ে যারে তখন কোনই ক্রন্দনকারিনা ক্রন্দন করবে না। সাহাবীরা জিজ্ঞাসা করলেন, ’উজুব’ শব্দের অর্থ কি ইয়া রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) তিনি বললেন, ‘মৃত্যু’। তার কন্যা বলল, যে আমি তো এ আশাই করতাম যে, আপনি শহীদ হবেন। আপনি তো শাহাদাতের যাবর্তীয় পাথেয় সংগ্রহ করেই রেখেছিলেন। রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বললেন, আল্লাহ তা’আলা তার নিয়্যত অনুযায়ী তাকে শাহাদাতের সওয়াব দিয়ে দিয়েছেন। আচ্ছা, তোমরা শাহাদাত কাকে মনে কর? তারা বললেন, আল্লাহর রাস্তায় মৃত্যুবরণ করাকে। রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বললেন, আল্লাহর রাস্তায় মৃত্যুবরণ করা ব্যতীতও আরো সাত প্রকারের শাহাদাত আছে
১/ প্লেগ রোগে মৃত ব্যক্তি শহীদ
২/ পেটের পীড়ায় মৃত ব্যক্তি শহীদ
৩/ পানিতে ডুবে মৃত ব্যক্তি শহীদ
৪/ প্রাচীর চাপায় মৃত ব্যক্তি শহীদ
৫/ আভ্যন্তরীণ বিষ ফোঁড়ায় মৃত ব্যক্তি শহীদ
৬/ অগ্নিদাহে মৃত ব্যক্তি শহীদ
৭/ প্রসবকালে মৃত রমনী শহীদ।
Nuzhat Sharmin Taar mane ki oder kono kobor azab hobena??

Faisal Ahmed Opu শহীদ হবার জন্য ইমান থাকা জরুরি…।। বাকিটা আল্লাহ ভাল জানে

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s