TWO RAKATS DUKHLUL MASJID EVEN KHUTBAH RUNNING,ITS WAJIB.STOP RED LIGHT:হুজুর যে লাল বাতি জ্বালিয়ে রেখেছে, তাহলে এ সুন্নত পালন করবে কে?

1W

মসজিদে গিয়ে যারা তাহ্যিয়াতুল মসজিদ নামায না পড়ে বসে পড়ে, তারা মূলতঃ রাসূল সা. এর নির্দেশ মান্য করলো না। বেপরোয়া মনোভাবের অধিকারী।
.
.
দেশের মহামান্য প্রেসিডেন্টের কিংবা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্যকারীর শাস্তি কি?
তাহলে রাসূল সা. এর নির্দেশ অমান্যকারীর পরিণতি কেমন হওয়া উচিত?
.
ভাবুন, আমলটি কষ্ট করে হলেও তামিল করা জরুরী নয় কি? আখেরাতের প্রভূত লাভের জন্য যারা পাগলপারা, তারা এ সকল গুরুত্বপূর্ণ ইবাদতের মাধ্যমে নিজেকে লাভবান করবে আশা করা যায়। আল্লাহ আমাদের খাঁটি বুজ দান করুন।

LOG ON FOR ORI COMMENTS- LAL-BATTI ..STOP IT
++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++++
aa

হুজুর যে লাল বাতি জ্বালিয়ে রেখেছে, তাহলে এ সুন্নত পালন করবে কে?

সহিহ মুসলিম :: হাদিস ১৫৩৯
আব্দুল্লাহ ইবনু মাসলামা (র) ইবনু কা-নাব (র), কুতায়বা ইবনু সাঈদ ও ইয়াহিয়া ইবনু ইয়াহিয়া (র) আবু কাতাদা (র) থেকে বর্ণিত । তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ (ﷺ) বলেছেন, যখন তোমাদের কেউ মাসজিদে প্রবেশ করে, তখন বসার আগে দু-রাক’আত স্বলাত আদায় করবে ।
তাখরীজঃ ই.ফা. ১৫২৪ , ই.সে. ১৫৩১আবূ কাতাদাহ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (ﷺ) বলেছেন, “যখন তোমাদের কেউ মসজিদ প্রবেশ করবে, তখন সে যেন দু’ রাকআত নামায না পড়া অবধি না বসে।” (বুখারী ও মুসলিম)
তাখরীজ :: সহীহুল বুখারী (তাওহীদ পাবলিকেশন ও সফটওয়ার) ৪৪৪, ১১৬৭, মুসলিম ৭১৪, তিরমিযী ৩১৬, নাসায়ী ৭৩০, আবূ দাউদ ৪৬৭, ইবনু মাজাহ ১০২৩, আহমাদ ২২০১৭, ২২০৭২, ২২০৮৮, ২২১৪৬, দারেমী ১৩৯৩

জাবের হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী (ﷺ)-এর নিকট এলাম, তখন তিনি মসজিদে ছিলেন। তিনি বললেন, “দু’ রাকআত নামায পড়।” (বুখারী, মুসলিম)
তাখরীজ :: সহীহুল বুখারী (তাওহীদ পাবলিকেশন ও সফটওয়ার) ৪৪৩, ১৮০১, ২০৯৭, ২৩০৯, ২৩৯৪, ২৪৭০, ২৬০৩, ২৬০৪, ২৭১৮, ২৮৬১, ২৯৬৭, ৩০৮৭, ৩০৯০, ৫০৭৯, ৫২৪৫-৫২৪৭, মুসলিম ৭১৫, তিরমিযী ১১০০, ১১৭২, ২৭১২, নাসায়ী ৩২১৯, ৩২২০, ৩২২৬, ৪৫৯০, ৪৫৯১, ৪৬৩৭-৪৬৪১, আবূ দাউদ ২০৪৮, ২৭৭৬-২৭৭৮, ৩৩৪৭, ইবনু মাজাহ ১৮৬০, আহমাদ ১৩৭১৮, ১৩৭৬৪, ১৩৭৭২, ১৩৭৮০, ১৩৮১৪, ১৩৮২০, ১৩৮২২, দারেমী ২২১৬, ২৬৩১

আবূ হুরাইরা হতে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (ﷺ) বিলাল -কে উদ্দেশ্য করে বললেন, “হে বিলাল! আমাকে সর্বাধিক আশাপ্রদ আমল বল, যা তুমি ইসলাম গ্রহণের পর বাস্তবায়িত করেছ। কেননা, আমি (মি’রাজের রাতে) জান্নাতের মধ্যে আমার সম্মুখে তোমার জুতার শব্দ শুনেছি।” বিলাল বললেন, ‘আমার দৃষ্টিতে এর চাইতে বেশী আশাপ্রদ এমন কোন আমল করিনি যে, আমি যখনই রাত-দিনের মধ্যে যে কোন সময় পবিত্রতা অর্জন (ওযু, গোসল বা তায়াম্মুম) করেছি, তখনই ততটুকু নামায পড়েছি, যতটুকু নামায পড়া আমার ভাগ্যে লিপিবদ্ধ ছিল।’ (বুখারী ও মুসলিম, এ শব্দগুলি বুখারীর)
তাখরীজ :: সহীহুল বুখারী (তাওহীদ পাবলিকেশন ও সফটওয়ার) ১১৪৯, মুসলিম ২৪৫০৮, আহমাদ ৮১৯৮, ৯৩৮০

সহীহুল বুখারী :: হাদিস : ১১৬৩
মাক্কী ইবনু ইব্রাহীম (র)….. আবূ কাতাদা ইবনু রিব’আ আনসারী থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ্‌ (ﷺ) ইরশাদ করেছেনঃ তোমাদের কউ মাসজিদে প্রবেশ করলে দু’ রাকা’আত স্বলাত (তাহিয়্যাতুল-মাসজিদ) আদায় করার আগে বসবে না।
তাহক্বীক:: মারফু হাদিস।
তাখরীজ :: ( বুখারীঃ তা.পা ৪৪৪) ( আ.প্র. ১০৮৯, ই.ফা. ১০৯৪)

সহিহ মুসলিম :: হাদিস ১৫৩৯
আব্দুল্লাহ ইবনু মাসলামা (র) ইবনু কা-নাব (র), কুতায়বা ইবনু সাঈদ ও ইয়াহিয়া ইবনু ইয়াহিয়া (র) আবু কাতাদা (র) থেকে বর্ণিত । তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ (ﷺ) বলেছেন, যখন তোমাদের কেউ মাসজিদে প্রবেশ করে, তখন বসার আগে দু-রাক’আত স্বলাত আদায় করবে ।
তাখরীজঃ ই.ফা. ১৫২৪ , ই.সে. ১৫৩১

সহিহ মুসলিম :: হাদিস ১৯০৩
জাবির ইবনু আবদুল্লাহ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একদা নবী (ﷺ) জুমু‘আর দিন খুতবা দিচ্ছিলেন। তখন এক ব্যক্তি উপস্থিত হলে নবী (ﷺ) তাকে বলেন: হে অমুক! তুমি কি স্বলাত পড়েছ? সে বললো, না। তিনি বলেন, উঠে দাঁড়িয়ে স্বলাত পড়ো (তাহিয়্যাতুল মাসজিদ)।
তাখরীজঃ ই.ফা. ১৮৮৮ , ই.সে. ১৮৯৫

@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@@

প্রশ্ন :অনেক মসজিদে দেখা য়ায় লাল বাতি থাকে এবং লিখা থাকে বাতি জ্বলার সময় নামাজ পড়া যাবে না!?
একথার সত্যতা কতটুকু?
উওর: আবু কাতাদাহ (রাঃ) হতে
বর্ণিত । তিনি বলেন ,রাসূলুল্লাহ (সাঃ)
বলেছেন ,যখন তোমাদের কেউ মসজিদে
প্রবেশ করবে ,তখন সে যেন দু’রাকাত
সালাত আদায় করা ব্যতীত না বসে ।
( বুখারী হা/৪৪৪ , ১১৬৭ ; মুসলিম হা/ ৭১৪ ;
তিরমিযী হা/ ৩১৬ ; নাসাঈ হা/ ৭৩০ ; আবু
দাউদ হা/ ৪৬৭ ; ইবনু মাজাহ হা/ ১১২৩ ;
আহমাদ হা/ ২২০১৭ , ২২০৭২ , ২২০৮৮ ,
২২১৪৬ ;দারেমী হা/ ১৩৯৩ ; রিয়াদুস
সালেহীন হা/ ১১৫১)
হাদীস:২: জাবির (রাঃ) হতে বর্ণিত ।
তিনি বলেন ,নবী করীম (সাঃ) এর খুৎবা
দানকালে সেখানে এক ব্যক্তি আগমন
করেন । তিনি তাকে বলেন , হে অমুক !
তুমি কি ( তাহিয়াতুল মাসজিদ ) সালাত
পড়েছ ? ঐ ব্যক্তি বলেন , না । নবী
( সাঃ ) বলেন , তুমি দাঁড়িয়ে সালাত
আদায় কর । অন্য হাদীসে বলা হয়েছে
তুমি সংক্ষিপ্ত ভাবে দুই রাকাআত
( তাহিয়াতুল মাসজিদ ) সালাত আদায়
কর ।
( বুখারী হা/৮৮৩ , ৮৮৪ ; মুসলিম হা/১৮৯৫ ,
১৮৯৬ , ১৮৯৭ , ১৮৯৮ , ১৮৯৯ , ১৯০০ ;
তিরমিযী ; ইবনে মাজাহ ; নাসাঈ
হা/১৪০৩ ; আবু দাউদ হা/১১১৫ , ১১১৬ ,
১১১৭)
প্রথম হাদীসে রাসূলুল্লাহ (সাঃ)
তাহিয়াতুল মাসজিদ সালাতের গুরুত্ব
বুঝিয়েছেন এবং এই সালাত না আদায়
করে বসতে নিষেধ করেছেন ।
দ্বিতীয় হাদীসে রাসূলুল্লাহ (সাঃ)
নিজে খুৎবা চলাকালীন অবস্থায় আগত
ব্যক্তিকে দাঁড় করিয়ে দুই রাকাত
তাহিয়াতুল মাসজিদ সালাত আদায়
করিয়ে এই সালাতের গুরুত্বের প্রমাণ
দিয়েছেন ।
আল্লাহ আপনাদের অন্ধ অনুসরণ থেকে
মুক্ত করে সহীহ হাদীসের উপর আমল
করার তাওফিক দিন।আমিন

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s