ছালাতে বুকের উপর হাত বাঁধা

প্রশ্ন (১০৬৬): ছালাতে বুকের উপর হাত বাঁধার ক্ষেত্রে কেউ কনুই পর্যন্ত পুরো হাত অপর হাতের উপর রাখে। আবার কেউ হাতের তালু অপর হাতের তালুর উপর রাখে।
এক্ষণে হাত বাঁধার সঠিক নিয়ম কি ??
***
উত্তর: বাম হাতের উপরে ডান হাত বুকের উপরে রাখাই ছালাতে হাত বাঁধার সঠিক নিয়ম।
ওয়ায়েল বিন হুজ্র (রাঃ) বলেন, ‘আমি রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর সাথে ছালাত আদায় করলাম। এমতাবস্থায় দেখলাম যে, তিনি বাম হাতের উপরে ডান হাত স্বীয় বুকের উপরে রাখলেন।
(ছহীহ ইবনু খুযায়মা হা/৪৭৯; আবুদাঊদ হা/৭৫৫)
*
একই রাবী কর্তৃক অন্য বর্ণনায় আরো স্পষ্টভাবে এসেছে যে,
রাসূল (ছাঃ) ছালাতে ডান হাত বাম হাতের পাতা, কব্জি ও হাতের উপর রাখতেন।
(নাসাঈ হা/৮৮৯, সনদ ছহীহ)
*
এর দ্বারা কনুই থেকে কনুই পর্যন্ত পুরা হাতকে বুঝানো হয়েছে।
যেমন সাহ্ল বিন সা‘দ (রাঃ) বলেন, ‘লোকদেরকে নির্দেশ দেওয়া হ’ত যেন তারা ছালাতের সময় ডান হাত বাম হাতের উপরে রাখে।
(বুখারী হা/৭৪০; মিশকাত হা/৭৯৮)
*
অনুরূপভাবে বাম হাতের জোড়ের (কব্জির) উপরে ডান হাতের জোড় বুকের উপরেও রাখা যাবে।
(আহমাদ হা/২২০১৭; আহকামুল জানায়েয ১/১১৮, সনদ হাসান)
*
‘ছালাতে তালুর উপর তালু রাখা সুন্নাত’ মর্মে বর্ণিত হাদীছটি যঈফ।
(দারাকুৎনী হা/১০৮৫, সনদ যঈফ)
*
এতদ্ব্যতীত নাভীর নীচে হাত বাঁধা সম্পর্কে যত হাদীছ এসেছে সবই যঈফ।
(দারাকুৎনী হা/১০৮৯-৯০; আবুদাঊদ হা/৭৫৬; মুছান্নাফ ইবনু আবী শায়বাহ হা/৩৯৬৩, সনদ যঈফ)
*
আলবানী (রহঃ) বলেন, হাতের উপর হাত রাখা এবং ধরা দু’টিই সুন্নাত।
কিন্তু এ বিষয়ে পরবর্তী হানাফী বিদ্বানগণের কেউ কেউ যা বলেছেন সেটি বিদ‘আত।
তার নিয়ম যা তারা বলেছেন যে, ডান হাত বাম হাতের কব্জির উপর রাখবে এমন ভাবে যে, কনিষ্ঠা ও বৃদ্ধাঙ্গুলি দ্বারা কব্জি ধরবে এবং বাকি তিনটি আঙ্গুল খোলা থাকবে।
(ছিফাতু ছালাতিন্নবী পৃঃ ৬৮, টীকা-৬)
—————————————–
দারুল ইফতা
হাদীছ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ
মাসিক আত-তাহরীক প্রশ্নোওর

[[sourse-ইসলাম সম্পর্ক প্রশ্ন-উওর]]

———————————————————————–

comments:-

Azad Ahmed
Azad Ahmed সুনানে আবু দাউদ (ইফাঃ), ২/ সালাত (নামায)৭৫৯। আবূ তাওবা তাউস (রহঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নামাযরত অবস্হায় ডান হাত বাম হাতের উপর স্হাপন করে তা নিজের বুকের উপর বেঁধে রাখতেন। হাদিসের মানঃ সহিহ – আলবানী Narrated Tawus: The Messenger of Allah () used to place his right hand on his left hand, then he folded them strictly on his chest in prayer. Grade : Grade: Sahih (Al-Albani) ﺣَﺪَّﺛَﻨَﺎ ﺃَﺑُﻮ ﺗَﻮْﺑَﺔَ، ﺣَﺪَّﺛَﻨَﺎ ﺍﻟْﻬَﻴْﺜَﻢُ، – ﻳَﻌْﻨِﻲ ﺍﺑْﻦَ ﺣُﻤَﻴْﺪٍ – ﻋَﻦْ ﺛَﻮْﺭٍ، ﻋَﻦْ ﺳُﻠَﻴْﻤَﺎﻥَ ﺑْﻦِ ﻣُﻮﺳَﻰ، ﻋَﻦْ ﻃَﺎﻭُﺱٍ، ﻗَﺎﻝَ ﻛَﺎﻥَ ﺭَﺳُﻮﻝُ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﺳﻠﻢ ﻳَﻀَﻊُ ﻳَﺪَﻩُ ﺍﻟْﻴُﻤْﻨَﻰ ﻋَﻠَﻰ ﻳَﺪِﻩِ ﺍﻟْﻴُﺴْﺮَﻯ ﺛُﻢَّ ﻳَﺸُﺪُّ ﺑَﻴْﻨَﻬُﻤَﺎ ﻋَﻠَﻰ ﺻَﺪْﺭِﻩِ ﻭَﻫُﻮَ ﻓِﻲ ﺍﻟﺼَّﻼَﺓِ . ﺻﺤﻴﺢ ( ﺍﻷﻟﺒﺎﻧﻲ ) ﺣﻜﻢ উত্তর ﺑﺴﻢ ﺍﻟﻠﻪ ﺍﻟﺮﺣﻤﻦ ﺍﻟﺮﺣﻴﻢ এটি মুরসাল হাদীস। কারণ এটি বর্ণনা করেছেন একজন তাবেয়ী। তিনি কোন সাহাবী থেকে শুনেছেন তা তিনি বলেননি। তাই এ হাদীসের সনদ রাসূল সাঃ পর্যন্ত পৌঁছেনি। যে হাদীসের সনদ রাসূল সাঃ পর্যন্ত পৌঁছেনি। সেটি দিয়ে কথিত আহলে হাদীস ভাইয়েরা কি করে দলীল পেশ করেন? তাছাড়া এ হাদীসে সুলাইমান বিন মুসা নামে একজন বর্ণনাকারী রয়েছেন। তার সম্পর্কে ১ ইমাম বুখারী রহঃ বলেছেন ﻋﻨﺪﻩ ﻣﻨﺎﻛﻴﺮ তথা তার কাছে আপত্তিকর বর্ণনা রয়েছে।{আলকাশিফ লিযযাহাবী} ২ ইমাম নাসায়ী রহঃ বলেছেন, ﻟﻴﺲ ﺑﺎﻟﻘﻮﻯ ﻓﻰ ﺍﻟﺤﺪﻳﺚ তথা তিনি হাদীসে মজবুত নন। {আলকাশিফ লিযযাহাবী} ৩ আলী ইবনুল মাদিনী রহঃ বলেছেন ﻣﻄﻌﻮﻥ ﻋﻠﻴﻪ তথা সমালোচিত ও অভিযুক্ত রাবী। ৪ আস সাজী রহঃ বলেছেন, ﻋﻨﺪﻩ ﻣﻨﺎﻛﻴﺮ তথা তার কাছে আপত্তিকর বর্ণনা আছে। ৫ হাকেম আবু আহমাদ রহঃ বলেছেন, ﻓﻰ ﺣﺪﻳﺜﻪ ﺑﻌﺾ ﺍﻟﻤﻨﺎﻛﻴﺮ তথা তার হাদীসে কিছু কিছু আপত্তিকর বিষয় আছে। ৬ ইবনুল জারূদ তাকে তার “যুআফা” গ্রন্থে উল্লেখ করেছেন। মানে তার মতে সুলাইমান একজন দুর্বল রাবী।

Azad Ahmed
Azad Ahmed ১. হাত না বেঁধে ছেড়ে দেওয়াঃ এটা আব্দুল্লাহ ইবনে যুবাইর (রাঃ), হাসান বসরী, ইমাম মালেক, আওযায়ী ও ইবরাহীম নখঈর মত। মালেকী মাযহাবের প্রসিদ্ধ মত।ইমাম আহমাদ থেকেও এ মতটি বর্ণিত হয়েছে। ২. গলার নিচে বুকের উপরিভাগে হাত বাঁধাঃ সূরা কাওসারের “ফাসল্লী লিরাব্বিকা ওয়ানহার” আয়াত, যার তাফসীরে ইবনে আব্বাস (রাঃ) “নাহর করা” অর্থ করেছেন, “ছালাতে গলার নিচে হাত বাঁধা”। অবশ্য বর্ণিত এই আছারটি দূর্বল এবং দলীল হিসেবে অযোগ্য। ৩. # বুকের_উপর_হাত_বাঁধাঃ বুকের উপর হাত বাঁধার বর্ণিত সকল হাদীছ দূর্বল। ছহীহ ইবনে খুযাইমাতে ওয়ায়েল ইবনে হুজর (রাঃ)- এর বর্ণিত হাদীছ # মুয়াম্মাল_ইবনে_ ইসমাঈল নামক রাবীর কারণে দূর্বল। বিদ্যমান। ] মুসনাদে আহমাদে বর্ণিত হাদীছটি রাবী কাবীছার কারণে দূর্বল।আর আবু দাঊদে বর্ণিত হাদীছটি মুরসাল হওয়ার কারণে যঈফ। সবগুলো হাদীছ একত্রে মিলেও শক্তি অর্জন করে না বলেও তিনি মত পোষণ করেছেন। সম্মানিত শায়খ আরো বলেন যে, বুকের উপর হাত বাঁধার এ মতটি প্রাচীন কোন মুহাদ্দিছ ফকীহ উল্লেখ করেন নি।ইমাম আহমাদ ইবনে হাম্বল (রহঃ) বুকে হাত বাঁধা মাকরূহ মনে করতেন। তবে প্রসিদ্ধ হানাফী ফকীহ ইমাম সারাখসী মুহাম্মাদ ইবনে আহমাদ (৪৮৩ হি) বলেন, “ইমাম শাফেঈ (রহঃ)-এর নিকট বুকের উপর হাত রাখা উত্তম”। ৭ম হিজরী থেকে হানাফী ফকীহগণ মহিলাদের জন্য বুকে হাত বাঁধাই “উত্তম” বলেছেন।এছাড়া পরবর্তীকালে দুজন প্রসিদ্ধ হানাফী ফকীহ ও মুহাদ্দিছ নারী ও পুরুষ উভয়ের জন্যই হস্তদ্বয় বুকের উপর রাখার পক্ষে মত পোষণ করেন। এরা হলেন শাইখ মুহাম্মাদ ইবনে আব্দুল হাদী সিন্দী ( ১১৩৮ হি/১৭২৬ খৃ) ও শাইখ মুহাম্মাদ হায়াত সিন্দী (১১৬৩ হি/১৭৫০খৃ)। বিংশ শতাব্দীর সেরা মুহাদ্দিছ ও ফকীহগণ যেমন শাইখ আলবানী, শাইখ বিন বায,শাইখ উছায়মীন প্রমুখ বুকে হাত বাঁধার পক্ষেই মত দিয়েছেন। ৪. # বুকের_নিচে_নাভীর_উপ রে_হাত_বাঁধাঃ বুক ও নাভীর মাঝে হাত রাখার পক্ষে সরাসরি কোন মারফূ হাদীছ রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) থেকে পাওয়া যায় না।তবে আলী (রাঃ) হতে বর্ণিত একটি আছার বা নিজস্ব কর্ম পাওয়া যায়, যার সনদ গ্রহণযোগ্য।এছাড় াও সাঈদ ইবনে যুবায়ের, মালেক, শাফেঈ, আহমাদ, নববী প্রমুখ বুকের নিচে নাভীর উপর হাত বাঁধতেন।শাফেঈ মাযহাবের মূল মত এটাই। সম্মানিত শায়খ বলেন, বুকের উপর হাত বাঁধার হাদীছ দিয়ে অনেক প্রাচীন মুহাদ্দিছ যেমন ইবনুল মুনজির, আবূ ইসহাক শীরাযী, ইমাম নববী প্রমুখ বুকের নিম্নভাগে নাভীর উপরে বুঝেছেন। কারণ, আরবীতে “সদর” বলতে “গলার নিম্নভাগ হতে পেটের উন্মুক্ত স্হানকে” বুঝায় (আল মু’জামুল ওয়াসীত্ব)। ৫. নাভীর নিচে হাত বাঁধাঃ নাভীর নিচে হাত বাঁধার পক্ষে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) থেকে কোন ছহীহ হাদীছ নেই। আব্দুর রহমান ইবনে ইসহাক সকল মুহাদ্দিছীনের ঐক্যমতে দূর্বল।তবে, সুফিয়ান সাওরী, ইবরাহীম নখঈ, আবূ হানীফা প্রমুখের নিজস্ব কর্ম ছহীহ সনদে বর্ণিত আছে।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s